বিকাশ ক্যাশব্যাক কি হালাল নাকি হারাম জানুন বিস্তারিত

Spread the love

বিকাশ থেকে পাওয়া ক্যাশব্যাক কি হালাল না হারাম এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর জন্য আমাদের এই পোস্ট। আজকের এই পোস্টে বিকাশ থেকে পাওয়া ক্যাশব্যাক কি হালাল না হারাম এই সম্পর্কে বিস্তারিত লেখার চেষ্টা করেছি।

সম্মানি ভিউয়ার সকলে জানাই সালাম ও শুভেচ্ছা : আসসালামু আলাইকুম।আশা করি সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতে আপনারা সবাই ভালো আছেন বিকাশ থেকে পাওয়া ক্যাশব্যাক কি হালাল না হারাম এই বিষয় নিয়ে বাংলাদেশের বিশিষ্ট কয়েকজন ইসলামিক আলোচক এর মতামত আপনাদের সাথে শেয়ার করতে শুরু করলাম।

শায়খ আহমদ উল্লাহ সাহেবের মতামত :

শায়খ আহমদ উল্লাহ

শায়খ আহমদ উল্লাহ সাহেব বলেছেন বিকাশ কোনো একটি পণ্য কেনার মাধ্যমে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্যাশব্যাক দিয়ে থাকে। এখন আমাদের জানার বিষয় ক্যাশব্যাক এর টাকা ঐ কোম্পানি দিল না বিকাশ দিলো। যেমন কোনো কোম্পানি আপনার কাছে ১০০ টাকায় একটি পণ্য বিক্রি করলো কিন্তু ১০০ টাকা মূল্য পরিশোধ করার পরে কোম্পানির পক্ষ থেকে আপনাকে ১০ টাকা সম্মানি দিলো বা ফেরত দিলো সেই টাকা আপনার জন্য হালাল হবে।

আর বিকাশ যদি তাদের প্রচারের জন্য তাদের এর পক্ষ থেকে আপনাকে ক্যাশব্যাক দেয় সেই ক্যাশব্যাক এর টাকা কি গ্রহণ করা যাবে? এই প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশের সব শ্রেণী পেশার গ্রহণযোগ্য একজন আলেম শায়খ আহমদ উল্লাহ সাহেব বলেছেন যেহেতু বিকাশ এর অর্জিত টাকায় হালাল হারাম দুটোই আছে সেক্ষেত্রে আপনি চাইলে গ্রহণ করতে পারবেন।

তবে এই সম্পর্কে আলেমসমাজ এর মধ্যে কিছুটা মতবিরোধ আছে, যেহেতু কোনো কোনো আলেম বলছেন এটা সন্দেহজনক সম্পদ তাই ক্যাশব্যাক এর সম্পূর্ণ টাকা বিনা সওয়াব এর আশায় দান করে দেওয়া আপনার জন্য ভালো। তারা এই ক্যাশব্যাক এর টাকা সুযোগ থাকলে এড়িয়ে চলাচলার পরামর্শ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন :

ই পেপার কি|বাংলাদেশের সকল ই পেপার এর তালিকা দেখে নিন

বাংলাদেশের ৬৪ জেলার নাম ও প্রতিষ্ঠিত সাল জেনে নিন

নতুন সেন্ড মানি চার্জ ঘোষণা করলো: বিকাশ

বিকাশ থেকে প্রথমবার এড মানি করলে ১০০ টাকা ক্যাশব্যাক

এই পোস্ট সম্পর্কে আপনাদের যেকোনো মতামত কমেন্টে লিখতে পারেন। আর আমার ফেসবুক পেজ লাইক দিয়ে আমার সাথে যুক্ত থাকুন।

পোস্ট সকল বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।


Spread the love

Leave a Comment