আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া সমূহ আরবি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ

আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া সমূহ আরবি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ আমাদের এই পোস্টে বিস্তারিতভাবে উল্লেখ করার চেষ্টা করেছি। আমি আশা করি আমাদের আজকের এই পোস্টে আপনার প্রয়োজনীয় দোয়া সমূহ পাবেন।

জেনে নিন আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া সমূহ আরবি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ

আস্সালামু আলাইকুম – আমি আশা করি আল্লাহর অশেষ রহমতে সকলেই ভালো আছেন। আমি আমার এই পৃষ্ঠায় ভোরে ঘুম থেকে উঠার দোয়া থেকে রাতে ঘুমানোর দোয়া পর্যন্ত সকল দোয়া সমূহ উল্লেখ করার চেষ্টা করেছি।

ঘুম থেকে উঠার দোয়া

الحمدُ لله الذي أحيَانَا بَعْدَ مَا أماتَنَا وإليه النُّشُوْر

বাংলা উচ্চারণ : ‘আলহামদু লিল্লাহিল্লাজি আহইয়ানা বা’দা মা আমাতানা ওয়া ইলাইহিন নুশুর।’

বাংলা অর্থ : সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর জন্য, যিনি আমাদের মৃত করার পর পুনরায় জীবিত করেছেন। আর তার দিকেই সবার পুনরুত্থান। (বুখারি, হাদিস : ৬৩২৪)

  1. দরুদে ইব্রাহিম বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ সহ | Durood ibrahim bangla
  2. দুরুদ শরীফ বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ | দরুদ শরীফ পড়ার নিয়ম | Dorud sorif bangla
  3. হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর জীবন কাহিনী
  4. হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর পিতা ও মাতার নাম কি
  5. হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর স্ত্রীদের নাম
  6. দোয়া কুনুত বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ
  7. দোয়া মাসুরা বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ
  8. আয়াতুল কুরসি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ | আয়াতুল কুরসির ফজিলত
  9. আসতাগফিরুল্লাহ দোয়া আরবী বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ
  10. দুই সিজদার মাঝের দোয়া আরবি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ

পেশাবখানা বা পায়খানায় প্রবেশ করার দোয়া


بِسْمِ اللهِ اَللهُمَّ إِنّيْ أَعًوْذُ بِكَ مِنَ الْخُبْثِ وَ الْخَبَائِثِ


উচ্চারণঃ বিসমিল্লাহি আল্লাহুম্মা ইন্নি আউযুবিকা মিনাল খুবসী ওয়াল খাবায়িস।

পেশাবখানা বা পায়খানা থেকে বের হওয়ার দোয়া


غُفْرَانَكَ الْحَمْدُ لِلهِ الَّذِيْ اَذْهَبَ عَنِّيْ الْاَذَى وَعَافَانِيْ.


উচ্চারণ : গুফরানাকা আল হামদু লিল্লাহিল্লাযি আযহাবা আননিল আযা ওয়া আফানী।

হাম্মামে (বাথরুমে) প্রবেশের দোয়া

স্বভাবতই তুমি ঘুম থেকে উঠে হাম্মামে বা ‘বাথরুমে’ যাবে। হাম্মামে প্রবেশের সময় বাম পা আগে দিবে। কারণ বাম পা দিয়ে হাম্মামে ঢোকা নবীজীর সুন্নত। আর ঢোকার পূর্বে নবীজীর শেখানো এই দোয়া পড়বে-

بِسْمِ اللهِ اَللّهُم إِنِّيْ أَعُوْذُ بِكَ مِنَ الخُبُثِ وَالخَبَائِثِ.

অর্থ : বিসমিল্লাহ, হে আল্লাহ! আমি তোমার নিকট দুষ্ট পুরুষ জিন ও নারী জিনের (অনিষ্ট) থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করছি। [সহীহ বুখারী, হাদীস ১৪২; সহীহ মুসলিম, হাদীস ৩৭৫ (বিসমিল্লাহ- মুসান্নাফে ইবনে আবি শাইবা, হাদীস ৫; আদদুআ, তবারানী, হাদীস ৩৫৭; আলমুজামুল আওসাত, তবারানী, হাদীস ২৮০৩)]

হাম্মাম থেকে বের হওয়ার দোয়া

প্রয়োজন শেষে হাম্মাম থেকে দ্রুত বের হয়ে যাওয়াই ভালো। বের হওয়ার সময় ডান পা আগে বের করবে। কারণ ডান পা আগে বের করা সুন্নত। আর বের হয়ে এই দুআ পড়বে-

غُفْرَانَكَ.

অর্থ : হে আল্লাহ! আমি তোমার ক্ষমা প্রার্থনা করছি। -জামে তিরমিযী, হাদীস ৭; সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ৩০

ঘুম থেকে উঠার পরের দোয়া

اَلْحَمْدُ للهِ الَّذِىْ اَحْىَ نَفْسِىْ بَعْدَ مَااَمَاتَهَا وَ اِلَيْهِ النُّشُوْرُ

বাংলা উচ্চারণঃ আলহামদুলিল্লাহিল লাজি আহইয়া নাফছি বা’দা মা আমাতাহা ওয়া ইলাইহিন নুশুর।

সমস্ত প্রশংসাই আল্লাহর জন্য। যিনি আমাদেরকে মারার পর জীবিত করেছেন। আর তাঁর দিকেই আমাদের ফিরে যেতে হবে।

ফজিলতঃ রাসূল (সঃ) ঘুম থেকে উঠেই এই দোয়া পড়তেন। এই দোয়া পড়লে সারাদিন ভালো কাটবে। (তিরমিজী শরীফ, খন্ড-২ পৃষ্ঠা-১৭৮)।

মসজিদে প্রবেশ করার দোয়া

اَللهُمَّ افْتَحْ لِيْ اَبْوَابَ رَحْمَتِكَ  

উচ্চারণঃ- আল্লাহুম্মাফ তাহলি আবওয়াবা রাহমাতিক।

হে আল্লাহ! আমার জন্যে আপনার রহমতের দরজা খুলে দিন।

মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া

اَللهُمَّ أِنِّيْ اَسْاَلُكَ مِنْ فَضْلِكَ  

বাংলা উচ্চারণঃ- আল্লাহুম্মা ইন্নী আসয়ালুকা মিন ফাদলিক।

হে আল্লাহ! আমি আপনার কাছে আপনার দয়া কামনা করছি।

ভোরে ঘুম থেকে উাঠার পর আপনার গোসল অথবা ওজু করতে হবে। তাই ওজু ও গোসল সম্পর্কে বিস্তারিত :

গোসলের ফরজ ৩টি

১। কুলি করা।
২। নাকে পানি দেওয়া।
৩। সমস্থ শরীর ভাল করে ধৌত করা

অজুর ফরজ ৪টি

১। সমস্থ মুখ ধোয়া।
২। দোন হাতের কনুইসহ ধোয়া ।
৩। মাথা মাসেহ্ করা।
৪। দুই পায়ের টাকনুসহ ধোয়া।

নামাজের ফরজ ৬টি

১। আল্লাহ আকবার বলে নামাজ শুরু করা।
২। দাঁড়িয়ে নামাজ পড়া।
৩। কেরাত পড়া।
৪। রুকু করা।
৫। দুই সেজদা করা।
৬। আখেরী বৈঠক করা।

নামাজের ওয়াজিব ১৪টি

১। আলহামদু শরীফ পুরা পড়া।
২। আলহামদুর সঙ্গে সূরা মিলান।
৩। রুকুতে দেরী করা।
৪। রুকু হইতে সোজা হইয়া খড়া হয়ে দেরী করা।
৫। দুই সিজদার মাঝখানে সোজা হইয়া দেরী করা
৬ । দুই রাকাতের পর বসা।
৭। দুই বৈঠকে আত্তাহিয়্যাতু পড়া।
৮। ইমামের জন্য কেরাত আস্তে ও জোরে পড়া।
৯। বিতরে নামাযে দু’আয়ে কুনুত পড়া।
১০। দুই ঈদের নামাযে ৬ তাকবীর বলা।
১১। প্রত্যেক ফরয নামাযের প্রথম দুই রাকাতে
কেরাতের জন্য নির্ধারিত করা।
১২। প্রত্যেক ফরজগুলির তারতীব ঠিক রাখা।
১৩ । প্রত্যেক ওয়াজিবগুলির তারতীব ঠিক রাখা।
১৪। আস্সালামু আলাইকুম বলিয়া নামায শেষ করা।

নামাজের মাসআলাহঃ নামাজে ভূলবসত কোন ওয়াজিব ছুটিয়া গেলে নামাজ শেষে সাজদায়ে সাহু করিলে ইনশাআল্লাহ নামায হইয়া যাবে। তবে ইচ্ছাকৃত ওয়াজিব তরক করিলে নামায পুনরাই পড়িতে হবে।

  1. আত্তাহিয়াতু সূরা বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ | তাশাহুদ বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ
  2. মোনাজাতের দোয়া বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ | মোনাজাতের দোয়া আরবি
  3. ইসলামিক পিকচার | ইসলামিক প্রোফাইল পিকচার
  4. ইসলামিক স্ট্যাটাস বাংলা | ইসলামিক স্ট্যাটাস পিকচার
  5. মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ
  6. ছেলেদের ইসলামিক নাম অর্থসহ
  7. ফেসবুকে ইসলামিক প্রোফাইল পিকচার
  8. ইসলামিক ইউটিউব চ্যানেলের নাম এর তালিকা
  9. ইসলামিক ব্লগ বাংলা (Islamic Blog Bangla) এর তালিকা
  10. ইসলামিক পত্রিকা সমূহ | মাসিক ইসলামিক পত্রিকা সমূহ

বিভিন্ন ধরনের বালা-মুসিবত দূর করার দোয়া

لَا إِلَهَ إِلَّا أَنْتَ سُبْحَانَكَ إِنِّي كُنْتُ مِنَ الظَّالِمِينَ

বাংলা উচ্চারণ: লা ইলাহা ইল্লা আন্তা সুবহানাকা ইন্নি কুনতু মিনাজ্ জালিমীন।

অর্থ: আপনি ব্যতীত আর কোনো উপাস্য নেই।

আমি আপনার পবিত্রতা ঘোষণা করছি। অবশ্যই আমি পাপী।

-সূরা আল আম্বিয়া: ৮৭

ফজিলত
১. এ আয়াতে আল্লাহতায়ালা ইরশাদ করেছেন, আমি নবী ইউনুসের প্রার্থনা মঞ্জুর করেছি। তাকে দু:খ থেকে মুক্তি দিয়েছি।

অনুরূপভাবে যে মুমিনরা এ দোয়া পড়বে আমি তাদেরও বিভিন্ন বালা-মুসিবত থেকে মুক্তি দিব। -সূরা আল আম্বিয়া: ৮৮

২. হজরত নবী করিম (সা.) ইরশাদ করেছেন, যে ব্যক্তি হজরত ইউনুস (আ.)-এর ভাষায় দোয়া করবে, সে যে সমস্যায়ই থাকুক আল্লাহতায়ালা তার ডাকে সাড়া দিবেন। -তিরমিজি: ৩৫০৫

৩. হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) আরও ইরশাদ করেছেন, আমার ভাই ইউনুসের দোয়াটি খুব সুন্দর। এর প্রথম অংশে আছে কালিমায়ে তায়্যিবা। মাঝের অংশে আছে তাসবিহ। আর শেষের অংশে আছে অপরাধের স্বীকারোক্তি। যে কোনো চিন্তিত, দু:খিত, বিপদগ্রস্থ ব্যক্তি প্রতি দিন এ দোয়া তিন বার পাঠ করবে আল্লাহতায়ালা তার ডাকে সাড়া দিবেন। -কানজুল উম্মাল: ৩৪২৮

আমল: কঠিন বালা-মুসিবত দূর করার জন্য বর্ণিত দোয়া বা আয়াতটি এক লক্ষ চব্বিশ হাজার পাঠ করে আল্লাহর কাছে দোয়া করলে, ওই দোয়া হয়।

শিশুর জিদ দূর করার আমল দোয়া:

أَفَغَيْرَ دِينِ اللَّهِ يَبْغُونَ وَلَهُ أَسْلَمَ مَنْ فِي السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ طَوْعًا وَكَرْهًا وَإِلَيْهِ يُرْجَعُونَ

উচ্চারণ: আফাগাইরা দীনিল্লাহি ইয়াবগুনা ওয়ালাহু আসলামা মান ফিস্ সামাওয়াতি ওয়াল আরদি তাউআউ ওয়া কারহান; ওয়া ইলাইহি ইয়ুরজাঊন।

অর্থ: তারা কি আল্লাহর দেয়া জীবন ব্যবস্থার পরিবর্তে অন্য জীবন ব্যবস্থা তালাশ করছে? নভোমণ্ডল ও ভূমণ্ডলে যা কিছু আছে স্বেচ্ছায় হোক বা অনিচ্ছায় হোক তার অনুগত হবে। সবাই তার কাছে ফিরে যাবে। -সূরা আল ইমরান: ৮৩

ফজিলত: যে ব্যক্তির সন্তান বা প্রাণী তাকে কষ্ট দেয়, সে যেন তার কানে সূরা আল ইমরানের ৮৩ নং আয়াত পড়ে। -আল মুজামুল আউসাত লিত্ তাবারানি: ৬৪

আমল: সন্তানের অতিরিক্ত জিদ থাকলে, কথা না শোনলে, কথা না মানলে প্রতিদিন ৭ বার সন্তানের কপালের উপরিভাগের চুলে হাত রেখে এ আয়াতখানা পাঠ করে তার চেহারা ও কানে ফুঁ দিলে- জিদ কমে আসে। এ আমল নূন্যতম ২১ দিন লাগাতার করতে হয়।

শ্রেষ্ঠ দোয়া

দোয়া: رَبَّنَا آتِنَا فِي الدُّنْيَا حَسَنَةً وَفِي الْآخِرَةِ حَسَنَةً وَقِنَا عَذَابَ النَّارِ

উচ্চারণ: রাব্বানা আতিনা ফিদ্ দুনইয়া হাসানাহ্, ওয়াফিল আখিরাতি হাসানাহ্। ওয়াকিনা আজাবান্নার।

অর্থ: হে আমার প্রভু! আমাকে দুনিয়াতে সুখ দান কর, আখেরাতেও সুখ দান কর এবং আমাকে জাহান্নাম থেকে বাঁচাও। -সূরা আল বাকারা: ২০১‍ৎ

ফজিলত: এ দোয়াকে সর্বশ্রেষ্ঠ দোয়া বলা হয়ে থাকে। নবী করিম (সা.) এ দোয়াটি সবচেয়ে বেশি পাঠ করতেন।

বিশিষ্ট তাবেয়ি হজরত কাতাদাহ (রহ.) সাহাবি হজরত আনাসকে (রা.) জিজ্ঞাসা করলেন, নবী করিম(সা.) কোন দোয়া বেশি করতেন? উত্তরে সাহাবি হজরত আনাস (রা.) উপরোক্ত দোয়ার কথা জানালেন। তাই হজরত আনাস (রা.) নিজে যখনই দোয়া করতেন- তখনই দোয়াতে এই আয়াতকে প্রার্থনারূপে পাঠ করতেন। এমনকি কেউ তার কাছে দোয়া চাইলে তিনি তাকে এ দোয়া দিতেন। -সহিহ মুসলিম: ৭০১৬

হজরত আনাস (রা.) আরও বলেন, আল্লাহতায়ালা এ দোয়ায় দুনিয়া ও আখেরাতের সকল কল্যাণ ও জাহান্নাম থেকে পরিত্রাণের প্রার্থনা একত্রিত করে দিয়েছেন।

দ্বীনদার স্ত্রী লাভের দোয়া:

رَبَّنَا هَبْ لَنَا مِنْ أَزْوَاجِنَا وَذُرِّيَّاتِنَا قُرَّةَ أَعْيُنٍ وَاجْعَلْنَا لِلْمُتَّقِينَ إِمَامًا

উচ্চারণ: রাব্বানা হাবলানা মিন আজওয়াজিনা ওয়া জুররি-ইয়্যাতিনা কুররাতা আয়ুনিওঁ-ওয়াজআলনা লিল মুত্তাকিনা ইমামা।

অর্থ: হে আমার প্রভু! স্ত্রী ও সন্তাদের দ্বারা আমার চোখ শীতল কর। আমাকে পরহেজগারদের আদর্শ কর। -সূরা ফোরকান: ৭৪

আমল: যারা বিয়ে করেননি তারা প্রত্যেক নামাজের (তা ফরজ, ওয়াজিব, সুন্নত, নফল যে কোনো নামাজ হোক) শেষ বৈঠকে দোয়ায়ে মাছূরা পড়ার পর কোরআনে বর্ণিত এই আয়াতখানা পাঠ করে সালাম ফিরাবেন। বিয়ের ব্যবস্থা না হওয়া পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে এ আমল করলে আশা করা যায়, আল্লাহভক্ত দ্বীনদার, পরহেজগার ও আদর্শ স্ত্রী জুটবে।

আর যারা বিয়ে করেছেন তারা স্ত্রী ও সন্তানদের দ্বীনদার করার জন্য, তাদের আদর্শবান করে গড়ে তোলার জন্য- প্রতিবার দোয়ায় এ আয়াত আয়াত পাঠ করলে বিশেষ উপকার লাভ হয়।

রিজিক বৃদ্ধির আমল দোয়া:

اللَّهُ لَطِيفٌ بِعِبَادِهِ يَرْزُقُ مَنْ يَشَاءُ وَهُوَ الْقَوِيُّ الْعَزِيزُ

উচ্চারণ: আল্লাহু লাতীফুম্ বি-ইবাদিহি ইয়ারজুকু মাইয়্যাশায়ু, ওয়া হুয়াল কাভিয়্যুল আজিজ।

অর্থ: আল্লাহতায়ালা নিজের বান্দাদের প্রতি মেহেরবান। তিনি যাকে ইচ্ছা রিজিক দান করেন। তিনি প্রবল, পরাক্রমশালী। -সূরা শুরা: ১৯

আমল: যে ব্যক্তি প্রতিদিন সকালে নিয়ম করে, একনিষ্ঠতার সঙ্গে ৭০ বার এ আয়াত পড়বে, সে সর্বদা রিজিকের সঙ্কট থেকে হেফাজতে থাকবে।

স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধির দোয়া ও নিয়ম

স্মৃতিশক্তির দুর্বলতার কারণে অনেক শিক্ষার্থীকেই নানাবিধ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এ ক্ষেত্রে শিক্ষার্থী নিজে অথবা তার পিতা-মাতা প্রতিদিন প্রত্যেক নামাজের পর সূরা আলাম নাশরাহ পড়ে তার বুকে ফুঁ দিবে। সূরা পাঠ করার শুরু ও শেষে একবার করে দরূদ শরিফ পড়বে। যদি শিক্ষার্থী সমঝদার হয়, তবে প্রতিবার পড়তে বসার সময়, প্রত্যেক ক্লাসের শুরুতে, শিক্ষার প্রতিটি আসরের শুরুতে আগে-পরে দরূদ শরিফসহ এ সূরা পড়ে নিজের বুকে ফুঁ দিবে। যে নিয়মিত এ আমল করবে, আল্লাহর রহমতে তার স্মৃতিশক্তি বাড়বে।

নোটিশ: যে কোনো আরবির বাংলা উচ্চারণ লেখায় মূল উচ্চারণ অনেকাংশেই ব্যহত হয়। এক্ষেত্রে আমাদের পরামর্শ হলো, বর্ণিত এসব দোয়া আপনার নিকটস্থ মসজিদের ইমাম-খতিব বা ভালো কোনো আলেমের কাছ থেকে শিখে নিবেন।

(তথ্যসূত্রঃ বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোর / অন্যান্য)

সর্বশেষ

আমি আশা করি আপনারা সকল দোয়া সমূহ – আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া আরবি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন।

সকল দোয়া সমূহ – আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া আরবি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ পোস্ট সম্পর্কে আপনাদের যেকোনো মতামত কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আর আমার ফেসবুক ফলো করে আমার সাথে যুক্ত থাকুন।

সকল দোয়া সমূহ – আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া আরবি বাংলা উচ্চারণ ও অর্থসহ এই পোস্টটি যদি ভালো লাগে তাহলে আপনার সকল বন্ধুকে অবশ্যই শেয়ার করুন।

আমাদের ফেসবুক, টুইটার, গুগল নিউজ ফলো করে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন।

মানুষ আমাদের খুঁজছে: সকল দোয়া সমূহ, আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া, ইসলামিক সকল দোয়া সমূহ, সকল দোয়া সমূহ, সকল দোয়া সমূহ pdf, সকল দোয়া, দোয়া করুন, দোয়া করেছেন, দোয়া করবো, সকল ফিতনা থেকে বাঁচার দোয়া।

মানুষ আমাদের খুঁজছে: সকল দোয়া সমূহ, আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া, ইসলামিক সকল দোয়া সমূহ, সকল দোয়া সমূহ, সকল দোয়া সমূহ pdf, সকল দোয়া, দোয়া করুন, দোয়া করেছেন, দোয়া করবো, সকল ফিতনা থেকে বাঁচার দোয়া।

মানুষ আমাদের খুঁজছে: সকল দোয়া সমূহ আরবি, আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া, ইসলামিক সকল দোয়া সমূহ বাংলা উচ্চারণ সহ, সকল দোয়া সমূহ বাংলা , সকল দোয়া সমূহ pdf, আল্লাহুম্মা দিয়ে সকল দোয়া আরবি, দোয়া করুন, দোয়া করেছেন, দোয়া করবো, সকল ফিতনা থেকে বাঁচার দোয়া।

Leave a Comment