ব্লগিং কি | ব্লগিং এর জনক কে | ব্লগিং কেন করবো | কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো

ব্লগিং কি | ব্লগিং এর জনক কে | কেন ব্লগিং করবেন | কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো


ব্লগিং কি, ব্লগিং এর জনক কে, কেন ব্লগিং করবেন, কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো, ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় এই বিষয়গুলো নিয়ে এই পোস্টে আমি লেখার চেষ্টা করেছি। আপনারা যারা ব্লগিং শুরু করতে চাচ্ছেন অথবা শুরু করেছেন তাদের জন্য এই পোস্টটি অনেক প্রয়োজনীয় হবে কারণ এই পোস্টে ব্লগিং সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরও পাবেন।

ব্লগিং/ব্লগ কি, ব্লগিং কেন করবেন, ব্লগিং এর জনক কে, কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো এই সকল বিষয়ে নিচে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করেছি।

ব্লগিং সম্পর্কে প্রশ্ন ও উত্তর | Blogging Question and answer

ব্লগ / ব্লগিং কি?

ইংরেজি শব্দ Blog এর বাংলা প্রতিশব্দ ব্লগ , যা এক ধরনের অনলাইন ব্যক্তিগত মতামত প্রকাশের ব্যক্তিগত ওয়েবপৃষ্ঠা । ইংরেজি Blog শব্দটি Weblog এর ছোট্ট শব্দ । যারা ওয়েবপৃষ্ঠা পোস্ট করেন তাদেরকে ব্লগার বলা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে যেভাবে লিখে পোস্ট করেন ব্লগও সেভাবে পোস্ট করতে হয়। এছাড়াও বর্তমানে একাধিক ব্যাক্তি মিলে একটি ব্লগ পরিচালনা করে থাকে। সেই ব্লগগুলোকে অনলাইন পত্রিকা বা নিউজ পোর্টাল বলা হয়।

ব্লগিং এর জনক কে?

জর্ন বার্গার নামক একজন ব্যক্তি ১৯৯৭ সালের ডিসেম্বর মাসের ১৭ তারিখ সর্বপ্রথম ‘weblog’ শব্দটির আবিষ্কার করেন। এরপর ১৯৯৯ সালের মার্চ বা এপ্রিল মাসের দিকে ‘পিটার মেরহোলজ’ তার নিজস্ব ব্লগ পিটার্ম ডট কম এ কৌতুক করে ‘weblog’ শব্দটিকে ভাগ করে ‘blog’ বলে সম্বোধন করেন। তারপর থেকে ‘blog’ শব্দটির ব্যবহার দিনে দিনে বেড়েই চলেছে । ইভান উইলিয়ামস নামের একজন ব্যক্তি ব্লগার(Blogger) শব্দটি আবিষ্কার করেন।

কেন ব্লগিং করবেন?

বর্তমান সময়ে যারা স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে আমার মনে হয় ব্লগ বা ব্লগিং শব্দটি সবাই শুনেছে। বিশ্বের উন্নত দেশগুলোতে ব্লগিং খুব জনপ্রিয় একটা পেশা। সেখানে ব্লগিং নিয়ে লেখাপড়া করে আবার আয়ও করে। উন্নত দেশগুলোতে প্রায় সব শ্রেণীর পেশার মানুষ ব্লগিং পেশায় নিয়োজিত। আবার কেউ কেউ ব্লগিং থেকে ভালো পরিমাণ টাকা আয় করে সুন্দর জীবন যাপন করছে । তবে বাংলায় ব্লগিং করে বাংলাদেশ থেকে তেমন আয় করা যায় না। আশা করি ভবিষ্যতে বাংলাদেশ থেকে ভালো পরিমাণ টাকা ব্লগিং করে আয় করা যাবে।

কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো

আপনি ব্লগিং শুরু করতে চাচ্ছেন কিন্তু বুঝতে পারছেন না কিভাবে ব্লগিং করবেন। আপনি ফ্রি ব্লগিং শেখার জন্য ইউটিউবে অসংখ্য ভিডিও আছে সেগুলো মন দিয়ে দেখুন এবং ব্লগিং শুরু করুন । আর আপনি যদি ভালভাবে ব্লগিং শিখতে চান তাহলে পেইড কোর্স করে শিখে নিন দ্রুত ব্লগ থেকে আয় করতে পারবেন। ব্লগিং শুরু করার জনপ্রিয় দুটি মাধ্যম হচ্ছে ব্লগার এবং ওয়ার্ডপ্রেস। আমার মতে ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে ব্লগিং শুরু করুন দ্রুত সফল হতে পারবেন।

ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে

ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করতে সাধারণত তিনটি ডিজিটাল পণ্য লাগে সেগুলো হচ্ছে : ডোমেইন, হোস্টিং ও থিম।

আমাদের দেশে দুটি জনপ্রিয় মাধ্যমে ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়ে থাকে সেই মাধ্যমগুলো হচ্ছে : ব্লগার (Blogger) এবং ওয়ার্ডপ্রেস (WordPress)। এখন আপনাকে ঠিক করতে হবে আপনি কোন মাধ্যমে ওয়েবসাইটে তৈরি করবেন।

ব্লগার (Blogger) এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরির খরচ (ব্লগ তৈরির খরচ) কত জেনে নিন :

ব্লগার এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন একদম ফ্রি। আর আপনি এই ফ্রি ব্লগেই গুগল এডসেন্স এপ্রুভ নিয়ে ইনকাম করতে পারবেন। এছাড়া আপনি যদি চাইলে ডোমেইন এবং থিম প্রিমিয়াম যুক্ত করতে পারবেন। তবে ব্লগারে প্রিমিয়াম হোস্টিং প্রয়োজন হয় না। ব্লগার এর হোস্টিং বিশ্ব সেরা হোস্টিং এর মধ্যে অন্যতম। লাখ লাখ ভিজিটর একসাথে ভিজিট করলেও সার্ভার ডাউন হয় না। তাই আপনি ব্লগারে শুধুমাত্র একটি ভালো ডোমেইন কিনে ওয়েবসাইট রেডি করতে পারবেন। একটি ডোমেইন কিনতে লাগবে = ১০০০ টাকা।

ওয়ার্ডপ্রেস (WordPress) এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরির খরচ (ব্লগ তৈরির খরচ) কত জেনে নিন :

আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস (WordPress) এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে কিনতে হবে ডোমেইন, হোস্টিং ও থিম। তবে আপনি চাইলে ফ্রি থিম ব্যবহার করতে পারবেন। একটি ভালো ডোমেইন কিনতে লাগবে = ১০০০ টাকা, ১ বছরের জন্য হোস্টিং কিনতে লাগবে ১৫০০ থেকে ২৫০০ টাকা কোম্পানি এবং কোয়ালিট অনুযায়ী। আর ভালো একটি থিম আজীবনের জন্য কিনতে খরচ পরবে ২৫০০ থেকে ৪০০০ টাকার মধ্যে।

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় এই বিষয়ে জানার আগে আপনাকে প্রথমে ঠিক করতে হবে আপনি ইংরেজিতে ব্লগ লিখবেন না বাংলায়। বর্তমান সময়ে গুগল এডসেন্স এর উপর নির্ভর করে ৮০% লোক ব্লগ তৈরি করে এবং সেই ব্লগ থেকে ইনকাম করার চেষ্টা করে। ইংরেজি ব্লগে গুগল এডসেন্স থেকে আয় অনেক বেশি হয়। গুগল এডসেন্স থেকে বাংলা ব্লগে আয় একদম কম হয়।
যেখানে ইংরেজি ভাষায় ব্লগ লিখলে ১০০০ ভিজিটরে 5$ থেকে 10$ পর্যন্ত ইনকাম হয়। অন্যদিকে বাংলা ব্লগে 1$ থেকে সর্বোচ্চ 5$ পর্যন্ত ইনকাম হতে পারে। গুগল এডসেন্স ছাড়াও আপনি আরও কয়েকটি উপায়ে ব্লগ থেকে আয় করতে পারবেন, যেমন : বিভিন্ন এডনেটওয়ার্ক, এফিলিয়েশন, লোকাল স্পন্সর প্রভৃতি।

ব্লগ সাইট থেকে আয় যেভাবে করবেন

ব্লগ সাইটে গুগল এডসেন্স থেকে আয় যেভাবে করবেন :

কয়েক বছর আগেও বাংলা ব্লগে গুগল এডসেন্স
এপ্রুব হতো না কিন্তু এখন মানসম্মত আর্টিকেল লিখেতে পারলে অবশ্যই গুগল এডসেন্স এপ্রুভ পাওয়া যায়। আপনার বাংলা ব্লগে পর্যাপ্ত আর্টিকেল থাকলে প্রথমে মাসে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন আর আপনার ব্লগ সাইটটি যত পুরনো হবে পোস্টগুলো আস্তে আস্তে রেংক করবে ভিজিটর বাড়বে ব্লগ থেকে আয়ও দিন দিন বাড়তে শুরু করবে।

এফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate marketing) করে ব্লগ সাইট থেকে আয় যেভাবে করবেন

ব্লগে আপনার পছন্দের ই-কমার্স সাইট অথবা যেকোনো সাইট থেকে এফিলিয়েট লিংক সংগ্রহ করে ব্লগ পোস্ট অথবা সাইটবারে যুক্ত করে মোটা অংকের টাকা আয় করতে পারবেন।
ব্লগ থেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate marketing) করে আয় করতে হলে আপনি যে পোডাক্ট মার্কেটিং করতে চাচ্ছে সেই পোডাক্ট বিষয়ক ব্লগ লিখতে হবে এবং পোস্টে আপনার সংগ্রহ করা এফিলিয়েট লিংক যুক্ত করে দিতে হবে, তাহলে সেল হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
বাংলাদেশ থেকে বাংলা ব্লগে মোবাইল এবং কম্পিউটার এক্সসরিজ মাকেটিং করার সেরা ই- কমার্স সাইট (BDSHOP.COM), এই সাইটে থেকে মাত্র ১০০০ টাকা হলেই উত্তোলন করতে পারবেন বিকাশের মাধ্যমে।
আপনি যদি কোন ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানির ডিজিটাল পণ্য মাকেটিং করতে চান তাহলে (Putulhost.com) এই সাইট থেকে এফিলিয়েট লিংক সংগ্রহ করে মার্কেটিং শুরু করতে পারেন। আপনি মাত্র ৫০০ টাকা ব্যালেন্স হলেই বিকাশের মাধ্যমে উত্তোলন করতে পারবেন।

লোকাল স্পন্সর থেকে ব্লগ লিখে আয় যেভাবে করবেন

আপনার আশে পাশের ছোট কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান থেকে খুব সহজেই লোকাল স্পন্সর পেয়ে যেতে পারে, যেমন: আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করে জানাবেন যে আপনার একটি ব্লগ সাইট আছে সেখানে মাসে এত ভিজিটর আসে আমাকে মাসে এত টাকা দিতে হবে। সেই কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের আপনার সাইটটি দেখে পছন্দ হলে কিছু টাকা কম করে আপনাকে একটি ব্যানার তৈরি করে দিবে অথবা ব্যানার আপনাকে তৈরি করে দিতে বলবে, এভাবেই ছোট কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান থেকে আয় করতে পারবেন।
আপনি যদি গ্রামীণফোন,বাংলালিংক,এয়ারটেল রবি, বিকাশ, নগদ,রকেট ইত্যাদি থেকে লোকাল স্পন্সর পেতে চান তাহলে আপনার ব্লগ সাইটটিকে একটু বড় করে নিতে হবে যাতে মাসে এক লাখের মতো ভিজিটর আসে তাহলে আপনি এই সকল কোম্পানির কাছে লোকাল স্পন্সর এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। এছাড়াও দেশে বিভিন্ন ক্যাটাগরির বহু কোম্পানি রয়েছে তাদের থেকে স্পন্সরশীপ পাবেন তবে আপনাকে প্রথমেই ভিজিটর বাড়ানোর জন্য দিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

ব্লগ সাইটে লোকাল এডনেটওয়ার্ক থেকে আয় যেভাবে করবেন

বহু লোকাল এডনেটওয়ার্ক কোম্পানি আছে যারা ব্লগ তৈরি করার সাথে সাথে আবেদন করতেই এপ্রুভ করে দেয়, আপনার কি মনে করেন এপ্রুভ হলেই আপনার ইনকাম শুরু হয়ে যাবে, আমি বলবো না কারণ আপনার ব্লগে ভিজিটর না আসলে ১০০টি এডনেটওয়ার্ক থেকে এপ্রুভ নিলেও আপনার ১ টাকাও আয় হবে না, ব্লগ থেকে আয় করতে চাইলে আপনাকে প্রথমে ভিজিটর বাড়াতে হবে। একটি ব্লগে গুগল এডসেন্স এপ্রুভ হলে যে টাকা ইনকাম হয়, লোকাল এডনেওয়ার্ক থেকে একই ভিজিটরে তার তিনগুণ কম ইনকাম দেয়।
আমি আশা করি এই উপরের লেখাগুলো পড়ে ব্লগিং কি, ব্লগিং এর জনক কে, ব্লগিং কেন করবেন, ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় এই বিষয়েগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।
কিছু কথা : ব্লগিং আমার মতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করার মতো। আপনারা ইদানিং দেখা যায় ফেসবুকে অনেক সময় দেন। তাই আমার পরামর্শ ফেসবুকে সময় একটু কম দিয়ে ব্লগিং শুরু করতে পারেন। মন দিয়ে ব্লগিং করলে ভবিষ্যতে ব্লগিং হতে পারে আপনার অন্যতম আয়ের মাধ্যম।

ব্লগিং সংক্রান্ত সকল প্রশ্নের উত্তর

ব্লগিং সম্পর্কে প্রশ্ন ও উত্তর (Blogging Question and Answer) এই সম্পর্কে আমাদের এই পোস্ট। আমি আশা করি এই পোস্টে ব্লগিং সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

আপনার জন্য আরও:

ইউটিউব থেকে আয় ২০২১ : ইউটিউব থেকে মাসে কত টাকা ইনকাম করা যায়

ফেসবুক থেকে আয় ২০২২ : কিভাবে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুক পেজ থেকে আয় ২০২১ : ফেসবুক পেজ থেকে টাকা ইনকাম করার নিয়ম

অনলাইন ইনকাম ২০২১ : অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে ২০২১

ব্লগিং এ সফল হওয়ার উপায় কি?

আপনি যদি ব্লগিং এ সফল হতে চান এবং ব্লগ সাইট তৈরি করে সত্যিই আয় চান তাহলে আমার লেখা পোস্ট প্রবেশ করে বিস্তারিত পড়ুন : নতুনদের ব্লগিং এ সফল হওয়ার টিপস এন্ড ট্রিক্স

বাংলা ব্লগ থেকে আয় করার উপায় কি?

আপনি যদি সত্যিই বাংলা ব্লগ থেকে আয় করতে চান তাহলে নিচে একটি পোস্টের লিংক দিলাম লিংকে প্রবেশ করে বাংলা ব্লগ লিখে আয় করার মাধ্যমগুলো জানতে বিস্তারিত পড়ুন : বাংলা ব্লগ থেকে আয় করার সহজ উপায়গুলো জেনে নিন

কিভাবে বাংলা ব্লগে গুগল এডসেন্স পাওয়া যায়?

আপনি যদি বাংলা ব্লগ সাইট তৈরি করার পরে গুগল এডসেন্স কিভাবে পাবেন জানতে চান তাহলে আমার এই পোস্টটি পড়ুন : বাংলা ব্লগে গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় জেনে নিন।

কিভাবে ব্লগার (ব্লগস্পট.কম) ব্লগে কাস্টম ডোমেইন যুক্ত করবো?

আপনি ব্লগার ডটকম ওয়েবসাইটে একটি ব্লগ তৈরি করেছেন। তাই এখন সেই ব্লগে কাস্টম ডোমেইন যুক্ত করতে চাচ্ছেন কিন্তু যুক্ত করতে পারছেন না। আমি আশা করি আমার এই পোস্টটি পড়লে আপনি খুব সহজে কাস্টম ডোমেইন যুক্ত করতে পারবেন, তাহলে পোস্টটি পড়ুন : কিভাবে (ব্লগস্পট.কম) ব্লগারে কাস্টম ডোমেইন যুক্ত করবেন জেনে নিন
প্রশ্নঃ একটি keyword দিয়ে সার্চ দিলে গুগলের ৩-৪ নাম্বার পেজে আসে, এখন ঐ পোস্টটিকে প্রথম পেজে আনতে গেলে ঐ keyword এর উপর আরো ভালো ভালো কিছু আর্টিকেল লেখা উচিত নাকি, ঐ পোস্টের জন্য আরো ব্যাকলিংক করা উচিত, কোনটা বেশি কার্যকর।
উত্তরঃ পোস্টটিকে প্রথম পেজে আনতে হলে ঐ keyword লিখে সার্চ করলে যে পোস্টগুলো প্রথমে আসে সেই পোস্টেগুলোর থেকে বেশি শব্দের পোস্ট আপনাকে লিখতে হবে। আর আপনি যদি সাথে ব্যাকলিংক করতে পারেন তাহলে অল্প সময়ের মধ্যে আপনার পোস্টটি প্রথম পেজে চলে আসবে।
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনাদের যেকোনো মতামত কমেন্ট লিখতে পারেন। আর আমার ফেসবুক পেজ লাইক দিয়ে আমার সাথে যুক্ত থাকুন।
ব্লগিং কি, ব্লগিং এর জনক কে, কেন ব্লগিং করবেন, কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো, ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় এই পোস্টটি আপনার সকল বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন যাতে তারা ব্লগিং সম্পর্কে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করতে পারে।
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনাদের যেকোনো মন্তব্য লিখতে পারেন। আমি জবাব দেওয়ার চেষ্টা করবো। এছাড়াও আপনাদের জরুরি প্রয়োজনে সরাসরি আমার ফেসবুক পেজ এ মেসেজ করতে পারেন।
পোস্টটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *