বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সম্পর্কে জানার ইচ্ছে থাকলে এই পোস্ট আপনাদের জন্য। আজকের এই পোস্টে আমি বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার নিয়ম সম্পর্কে লেখার চেষ্টা করেছি।
বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় ও পরিচিত মোবাইল ব্যাকিং সেবা হচ্ছে বিকাশ।আমার জনামতে দেশে মোবাইল ব্যাকিং এ লেনদেনের ৭০ ভাগ বিকাশের মাধ্যমে হয়ে থাকে।আমরা অন্য একটি পোস্টে বিকাশ একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন করার নিয়ম সম্পর্কে লিখেছিলাম। তবে আজকের পোস্টে শুধু বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সম্পর্কে লিখেছি।
অনেক গ্রাহক বিভিন্ন কারণে তাঁদের বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করতে চায়। যারা বিকাশের একাউন্ট ডিলিট করতে চাচ্ছেন কিন্তু ডিলিট করতে পারছেন না তাদের জন্য আজকের এই পোস্টটি লিখেছি।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার প্রয়োজন কেন হয়?

এরকম হতে পারে যে আপনি আপনার সিমে অন্যের NID কার্ড দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছিলেন। এখন আপনার NID কার্ড হাতে পেয়েছেন। তাই আপনি আপনার সিমে থাকা একাউন্টটি ডিলিট করে নতুন একটি একাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন।
এছাড়া অনেকেই ভিন্ন ভিন্ন কারণে তাদের আগের বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করে নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলতে চায়। তাই আপনারা যদি আপনাদের বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার কথা ভেবে থাকেন। তাহলে চিন্তা কোনো কারণ নেই, আজকের এই পোস্টে আমি কিভাবে বিকাশ ডিলিট করবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিত লেখার চেষ্টা করেছি।

বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার নিয়ম বা বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম জেনে নিন –

আপনি কাস্টমার কেয়ার এ কল করে বা মোবাইল অ্যাপস এর সাহায্যে বিকাশ ডিলিট করতে পাররেন না। বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য আপনাকে সরাসরি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে বিকাশ অফিসে যেতে হবে।
বিকাশ অফসে যাওয়ার পরে আপনি কি কারণে বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করতে চান সেই সম্পর্কে কাস্টমার ম্যানাজারকে বলতে হবে এবং আপনার NID কার্ড কাগজপত্র জমা দিতে হবে।
আর আপনার সিমে যদি অন্য কারও NID কার্ড দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলা থাকে তাহলে সেই ব্যক্তিকে বিকাশ অফিস সাথে নিয়ে যেতে হবে এবং অফিসে তার কাগজপত্র প্রয়োজন হবে।

বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার জন্য যে ডকুমেন্টসগুলো প্রয়োজন হবে জেনে নিন —

আপনার সিমে যে NID কার্ড দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলা হয়েছিল সেটা সঙ্গে নিয়ে বিকাশ অফিসে যেতে হবে সেই কার্ড হতে পারে আপনার বা অন্য কারও। আর আপনার যদি আপনারা পরিবারের কোনো সদস্য যেমন বাবা,মা,ভাই,বোন এর NID কার্ড ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট খুলে থাকেন। তাহলে সেই সদস্য কেউ বিকাশ অফিসে সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে। 
আপনার বিকাশ ডিলিট করার আগে আপনার বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স অবশ্যই শূন্য করে তারপর বন্ধ করবেন কারণ টাকাসহ একবার একাউন্ট বন্ধ করে ফেললে ঐ টাকা আর উঠানো সম্ভব হয় না।
তারপর আপনার সেই সিমে পুনরায় বিকাশ একাউন্ট খুলতে পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি ও NID কার্ডের প্রয়োজন পড়বে।
এছাড়া আপনাদের বিকাশ একাউন্ট সংক্রান্ত কোনো সমস্যা সমাধানের জন্য বিকাশ হেল্পলাইন নম্বর 16247 -তে কল করুন সকল বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন।

এগুলো পড়তে পারেন —

বিকাশ ক্যাশ আউট চার্জ ২০২১|BKash Cash Out Charge 2021| বিকাশ লিমিট
বিকাশ একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন করার নিয়ম জেনে নিন
বিকাশ অ্যাপ প্রতি রেফারে ১০০ টাকা বোনাস
আজকের এই পোস্ট বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার নিয়ম সম্পর্কে আপনাদের কোনো মতামত থাকলে কমেন্টে লিখতে পারেন আমি উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। এছাড়াও আপনাদের যেকোনো জরুরি প্রয়োজনে সরাসরি আমার ফেসবুক পেজ এ মেসেজে করতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ

পোস্টটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না

Leave a Comment